শিকড়ের টানেই অনেক যুগ পরে আমরা একত্রিত হতে পেরেছি: শাহিনা খাতুন

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের স্বাস্থ্য উপ-সচিব, প্লাটিনাম স্কুলের কৃতি ছাত্রী শাহিনা খাতুন বলেন, শিকড়ের টানেই অনেক যুগ পর আমরা একত্রিত হতে পেরেছি। প্লাটিনাম স্কুল আমাদেরকে একটি নতুন প্লাটফর্ম দিয়েছে। আমি সারাদিন ব্যস্ত থাকি। অনেক ফোন আমার কাছে আসে। আমার সন্তানরা অনেক সময় বলে মা এখন ফোন বন্ধ করে রাখ। আমি যখন কাজের ফাকে একাকি ভাবি তখন আমার স্মৃতির পাতায় প্লাটিনামের সেই পুরানো ট্যাঙ্কি, ক্লাসরুম, শ্রদ্ধেয় শিক্ষক ও আমার সহপাঠিদের চেহারা ভেসে ওঠে। কর্মক্ষেত্রে আজকে এসে অতীতের স্মৃতিগুলো মনে করলেও মানুষগুলোকে কাছে পাইনি। আজ প্লাটিনাম স্কুল স্টুডেন্টস এসোসিয়েশনের মাধ্যমে যে প্লাটফর্ম তৈরী হলো সেই প্ল্যাটফর্ম আমাদের সবাইকে নতুন ঠিকানা দিল। আমি মরে গেলে আমার সন্তান আমার সহযোদ্ধাদেরকে ফোন করে বলতে পারবে মামা মা নেই। লাশটি এসে দেখে যাও। একথা কিছুদিন আগেও ভাবতে পারিনি। এভাবেই অনুভূতি ব্যক্ত করতে গিয়ে চোখের কোনায় পানি এসে গিয়েছিল সদ্য বিদায়ী নাটোরের ডিসি বর্তমান উপ-সচিব শাহিনা খাতুনের।

১২ অক্টোবর শুক্রবার বিকালে ধানমন্ডি সানরাইজ প্লাজার টাইম স্কয়ার রেস্টুরেন্টে প্লাটিনাম স্কুল স্টুডেন্ট এসোসিয়েশনের নবগঠিত কমিটি ঘোষণা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

সংগঠনের আহ্বায়ক ইঞ্জি. আজাদ শাহরিয়ারের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন প্লাটিনামের কৃতি ছাত্র আল আরাফাহ ইসলামী ব্যাংক লিঃ এর ভাইস প্রেসিডেন্ট মো. আশরাফুল হক আরিফ, প্লাটিনাম স্কলের ১৯৭৪ সালের ব্যাচ বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও সমাজসেবক মোহাম্মদ আলী খান, প্লাটিনাম স্কুলের কৃতি ছাত্র ডা. মো. সালাউদ্দিন (বিসিএস স্বাস্থ্য), প্লাটিনাম স্কুলের কৃতি ছাত্র পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মির্জাপুর টাঙ্গাইলের মো. শহীদুল ইসলাম, বিশিষ্ট কবি ও আবৃত্তি শিল্পী সাফিয়া খন্দকার রেখা, আহ্বায়ক কমিটির সদস্য সচিব এস.এম হামিমুল বাহার, ৯০’র ব্যাচের মো. মঞ্জুর হোসেন ঈসা ও উত্তম কুমারের পরিচালনায় আরো বক্তব্য রাখেন ১৯৮৪ ব্যাচ থেকে শুরু করে ২০১৮ ব্যাচের বিভিন্ন প্রতিনিধি।

সভায় সর্বসম্মতিক্রমে ইঞ্জি. আজাদ শাহরিয়ারকে সভাপতি, রিজভী আহমেদকে সহ সভাপতি, এস.এম হামিমুল বাহারকে সাধারণ সম্পাদক এবং পটু খন্দকারকে সাংগঠনিক সম্পাদক করে নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়। গঠনতন্ত্র উপস্থাপন করেন ৯৩ ব্যাচের মো. দেলোয়ার হোসেন। অনুষ্ঠান শেষে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে গান পরিবেশন করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি শাহিনা খাতুন, ৯৬’র ব্যাচের শাহাদাত হোসেনসহ স্কুলের কৃতি ছাত্র ছাত্রীরা।

আগামী ডিসেম্বর মাসে মিলন মেলার মাধ্যমে আবারো প্লাটিনাম স্কুলের নবনির্বাচিত কমিটি অন্যান্য সদস্যদেরকে অন্তর্ভূক্ত করবেন। সভায় সর্বসম্মতিক্রমে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয় যে, প্লাটিনাম স্কুলের মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের সহযোগিতা এবং দরিদ্র ছাত্র-ছাত্রীদের সহযোগিতা ছাড়াও স্কুলের উন্নয়নের জন্য সংগঠনের পক্ষ থেকে সার্বিক ভূমিকা পালন করা হবে। সভার শুরুতেই ১৯৬৪ সাল থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত স্কুলের প্রাক্তন প্রধান শিক্ষক, শিক্ষকমন্ডলী এবং যে সমস্ত ছাত্র-ছাত্রী মৃত্যুবরণ করেছেন তাদের সকলের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করা হয় এবং তাদের জন্য বিশেষ দোয়া ও মোনাজাত করা হয়।