বেঙ্গল হিউম্যান রাইটস্ ফাউন্ডেশন পদকে ভূষিত হলেন আমেরিকা প্রবাসী মোশাররফ হোসেন খান চৌধুরী

ঢাকা: নিজ জন্মস্থান কুমিল্লায় শিক্ষার আলো জ্বালাতে তৈরী করেছেন মানুষ গড়ার অবিনশ^র কারখানা। ইন্টেগ্রিটি ইন্টারন্যাশনাল স্কুল এন্ড কলেজের চেয়ারম্যান আমেরিকা প্রবাসী মোশাররফ হোসেন খান চৌধুরী শিক্ষা ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা ও অবদান রাখার জন্য বেঙ্গল হিউম্যান রাইটস্ পদকে ভূষিত হয়েছেন।

আজ ২৫ মে ২০১৯ শনিবার বিকাল ৪ টায় হোটেল অরনেট ইন্টারন্যাশনালে হিউম্যান রাইটস্ ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে পবিত্র মাহে রমজানের তাৎপর্য শীর্ষক আলোচনা সভা, গুণীজন সম্মাননা, দোয়া ও ইফতার মাহফিলের আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বরাট জনকল্যাণ ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান ইঞ্জি. চৌধুরী নেসারুল হক। প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন শেরে বাংলা কৃষি বিশ^বিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. কামাল উদ্দিন আহমেদ। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন মোশাররফ হোসেন খান চৌধুরী ইউনিভার্সিটি কলেজের প্রতিষ্ঠাতা মোশাররফ হোসেন খান চৌধুরী, উত্তরা সিটি কলেজের চেয়ারম্যান মো. রাহাত মাহমুদ, গৌরী ফিউচার মডেল স্কুল এন্ড কলেজের চেয়ারম্যান আমিনুল হক বাবুল, জাতীয় মানবাধিকার সমিতির চেয়ারম্যান মো. মঞ্জুর হোসেন ঈসা। স্বাগত বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সভাপতি কাজী জামাল উদ্দিন।

বেঙ্গল হিউম্যান রাইটস্ ফাউন্ডেশন পদক পেয়ে এক প্রতিক্রিয়ায় মোশাররফ হোসেন খান চৌধুরী বলেন, আমি এই সংগঠনের কাছে ঋণী। আমার প্রতিষ্ঠানকে একটি বিশেষ মর্যাদা দিয়েছেন। ইতিমধ্যেই আপনারা জেনে আনন্দিত হবেন আমেরিকা বসেও আমি জীবনে যত অর্থ উপার্জন করেছি তার সিংহভাগ আমার গ্রামে ও থানায় শিক্ষার আলো জ¦ালাতে খরচ করেছি। নিজ উদ্যোগে ৮টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান তৈরী করেছি। এছাড়াও মাদ্রাসা, মসজিদসহ নানা সামাজিক কর্মকা-ের সাথে আমি সম্পৃক্ত রয়েছি। এ বিষয়ে আমার স্ত্রী আমাকে সবচেয়ে বেশী অনুপ্রেরণা দিয়েছে। ব্যক্তি জীবনে আমি উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত হতে পারিনি। সুদূর আমেরিকয়া গাড়ি চালিয়ে টাকা উপার্জন করেছি। এখন আমার ছেলে পৃথিবীর সবচেয়ে বড় বিশ^বিদ্যালয় থেকে ডিগ্রী লাভ করেছে। ভবিষ্যতে আমার এলাকার কোন দরিদ্র শিশু-কিশোর অর্থাভাবে উচ্চ শিক্ষা হতে যাতে বঞ্চিত না হয় সেজন্য আমি শিক্ষাবৃত্তি চালু করেছি। ব্রাক্ষ্মনপাড়ায় হাসপাতাল তৈরীর জন্য এক বিঘা জমি দান করেছি। এভাবে সমাজের উন্নয়নে নিজেকে নিয়োজিত রেখেছি।