ফুলবাড়ীর বিদ্যুৎ সরবরাহ কেন্দ্রের বেহাল অবস্থা : কর্তৃপক্ষ নিরব


মোঃ আব্দুল আলীম স্বর্ণকার ,(দিনাজপুর)প্রতিনিধি : দিনাজপুরের ফুলবাড়ী বিদ্যুৎ সরবরাহ কেন্দ্রের বেহাল অবস্থা । ৩০ বছরের নির্মিত বিদ্যুতের লাইনগুলি জরাজীর্ন অবস্থা। নর্থ সাউথ পাওয়ার ডিস্টিবিশন কোম্পানীর আওতায় ফুলবাড়ী আবাসিক বিদ্যুৎ সরবরাহ কেন্দ্রে ৩৩হাজার সরবরাহ হলেও ১১ হাজার পাওয়ার ডিস্টিবিশন লাইন থাকলেও এখানে সাবস্টেশন কন্ট্রোল রুম নাম থাকায় বিদ্যুতের লাইনগুলি নিয়ন্ত্রণ করতে পারছেনা ফুলবাড়ী বিদ্যুৎ সরবরাহ আবাসিক প্রকৌশলী। ফলে জীবনের ঝুকি নিয়ে বিদ্যুৎ অফিসের লাইনম্যান বি ২৮ জন, হেল্পার ৯ জন কাজ করছেন। ফুলবাড়ী বিদ্যুৎ সরবরাহ আবাসিক প্রকৌশলী দপ্তর থেকে জানাযায়, এখানে ইন্ডাস্ট্রিতে এস টি লাইন ১৫টি রয়েছে, ক্ষুদ্র মাঝারি শিল্পতে রয়েছে ২ শত ১৫টি, সেচ পাম্পে রয়েছে ৩শত ৫০টি, আবাসিক এলাকার বাসা বাড়িতে লাইন রয়েছে ১২ হাজার ৫০০টি। এখানে প্রত্যাক মাসে আবাসিক এলাকায় নতুন নতুন লাইন বাড়ছে। ফলে বিদ্যুৎ এর চাহিদাও বেড়ে গেছে। দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলা একটি গুরত্ব পূর্ন উপজেলা। এই উপজেলার ৪ থেকে ৫ কি.মি ও ১০ কি.মি পর্যন্ত বিদ্যুৎ সরবরাহ লাইন রয়েছে। এই এলাকায় বিদ্যুতের লাইন গুলি অতি পুরাতন হওয়ায় বিদ্যুতের পিলার ভেঙ্গে পড়ছে ও তার ছিড়ে পড়ছে। এই লাইন গুলিতে লাগানো তার গুলির টেম্ফার কমে যাওয়ার কারনে ঘন ঘন তার ছিড়ে পড়ছে ।
বিভিন্ন এলাকায় যে সব ট্যান্সমিটার বসানো রয়েছে বেশির ভাগেই অচল হয়ে পড়ছে। ট্যান্সমিটার নষ্ট হয়ে গেলে প্রায় এলাকায় বিদ্যুৎ বিহীন অবস্থায় থাকছে। এ দিকে ফুলবাড়ী শহরের প্রায় এলাকায় বিদ্যুতের লাইনগুলি ঝুকিপূর্ন রয়েছে। শহর বাদে অন্যান্য এলাকায় বাশের খুটি, কাঠের খুটি বসিয়ে আবাসিক এলাকায় ও ক্ষুদ্র মাঝারি শিল্প এবং সেচ পাম্প গুলিতে বিদ্যুতের সংযোগ দেয়া হয়েছে। ফুলবাড়ী উপজেলার সাথে পার্বতীপুর,মধ্যপাড়া, আফতাবগঞ্জ সপ্নপুরী,বিরামপুর এর সড়ক পথে যোগাযোগ থাকায় এই উপজেলার গুরুত্ব বেড়েগেছে। এর পাশর্^বর্তী বড়পুকুরিয়া কয়লা ভিত্তিক ২৫০ মেগাওয়ার্ট থেকে ৩৫০ মেগাওয়ার্ট কয়লাভিত্তিক তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র, বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি প্রকল্প, মধ্যপাড়া গ্রানাইট মাইনিং কোম্পানী লিমিটেড (কঠিন শিলা প্রকল্প রয়েছে)। ফুলবাড়ী বিদ্যুৎ সরবরাহ কেন্দ্র থেকে সরকারের বিপুল পরিমান আয় বাড়লেও বিদ্যুৎ গ্রাহকরা কোন সুযোগসুবিধা পাচ্ছেনা। বিদ্যুৎ লাইনের সমস্যা দেখা দিলে বে-সরকারী লোক নিয়ে কাজ করতে হয় জনবলের অভাবে। বর্তমান ফুলবাড়ী বিদ্যুৎ সরবরাহ কেন্দ্রের আওতায় বিভিন্ন এলাকায় ঝড় বৃষ্টি না হতেই লাইন বন্ধ করে দেয়া হয়। কেননা এই লাইনগুলি ঝুকি পুর্ন। এ ব্যাপারে ফুলবাড়ী আবাসিক প্রকৌশলী বিদ্যুৎ সরবরাহ কেন্দ্রের উপ-প্রকৌশলী মো. মাহাবুবুর রহমান এর সাথে গতকাল এ বিষয়ে মুঠো ফনে কথা বলতে গেলে তার বন্ধ পাওয়া যায়।