ধুনটে নাশকতা ও হত্যা মামলায় গ্রেফতার ২


ইনছাফুল ফকির,(বগুড়া) প্রতিনিধি : বগুড়ার ধুনট উপজেলায় ট্রাক চালক হত্যা ও নাশকতার চেষ্টা মামলার এজাহারভুক্ত আসামি জামায়াত নেতাসহ এক নারীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। রোববার দুপুর ১২টার দিকে ধুনট থানা থেকে আদালতের মাধ্যমে তাদের বগুড়া জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।
গ্রেফতারকৃতরা হলো উপজেলার গোসাইবাড়ি ইউনিয়ন জামায়াতের সেক্রেটারি জোড়খালী গ্রামের অহেদ আলীর ছেলে ডা. আলী আকবর (৫২) এবং ধুনট পৌর এলাকার পশ্চিম ভারনশাহী গ্রামের ছাবের আলীর স্ত্রী অলেদা খাতুন (৪৮)।
ধুনট থানার অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) ফারুকুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, উপজেলার চরখুকশিয়া গ্রামে দীর্ঘদিন ধরে জামায়াত কর্মী ইউনুস আলীর বাড়িতে সান-রাইজ কোচিং সেন্টারের নামে সেখানে জামায়াত-শিবিরের নেতাকর্মীরা দলীয় কর্মকান্ড পরিচালিত করেন। গত শুক্রবার দিবাগত রাতে ওই কোচিং সেন্টারে জামায়াত-শিবিরের নেতাকর্মীরা সারকার বিরোধী আন্দোলন, ধবংসাত্মক কার্যক্রম ও নাশকতা সৃষ্টির লক্ষে গোপন বৈঠকে বসেন। এ সময় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রাত ২টার দিকে ওই কোচিং সেন্টারে অভিযান চালিয়ে জিহাদি বই ও অস্ত্রসহ ইউনুস আলীকে গ্রেফতার করা হয়। এ ঘটনায় থানায় একটি মামলা দায়ের হয়েছে। ওই মামলার এজাহারভুক্ত আসামি হিসেবে শনিবার সন্ধ্যার দিকে বড়বিলা বাজার এলাকা থেকে আলী আকবরকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এছাড়া ২০১৪ সালের ১৬ নভেম্বর ভোরে পরকীয়া প্রেমের কারণে পৌর এলাকার পশ্চিম ভরশাহী গ্রামের জয়নাল আবেদীনের ছেলে মন্টু মন্ডল (২৮) নামে এক ট্রাক চালককে পিটিয়ে হত্যা করে। এ ঘটনায় ধুনট থানায় হত্যা মামলা দায়ের হয়। ওই মামলায় এজাহারভুক্ত আসামি হিসেবে অলেদা খাতুননের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন তদন্তকারী কর্মকর্তা। এদিকে, হত্যাকান্ডের পর থেকে অলেদা খাতুন পলাতক ছিলেন। এ কারণে আদালত থেকে তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়। গ্রেফতারি পরোয়ানামূলে শনিবার রাতে নিজ বাড়ি থেকে তাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।