উপহার -রেজ্নূ খান


অভিভূত হয়ে গেলাম পেয়ে উপহার,
মানুষ বলে আমরা যাদের বলি কাজের মানুষ,
বুয়া ,আয়া,বাবুর্চী,কিংবা পাহারাদার।
ওদেরকে ছাড্া চলে না সংসার।
একটু খানি ভূল করলে বকা ঝকা ,বেতন দেই বলে করি অহংকার।
ওরাও মানুষ ভেবে দেখি না তো একবার ।
ওদের ও তো মন আছে,
ওদেরও তো আছে স্বামী সন্তান ।
আছে ভালবাসা ,মায়া মমতার বাধঁন।
রোগ,শোক ,কস্ট ক্লেশ,
ওদের কমর্ে আমরা আছি বেশ।
বুয়া এখনো আসেনি কেন?
রাগে গজ গজ,
আজকে আসলে বুঝাব মজা কেন এত দেরী করে আসা?
আসলো বুয়া হাতে নিয়ে উপহার।
হাসি মুখে ,ম্যাডাম দেরী হয়ে গেছে ,
আমি ও আমার স্বামী বকুল ফুল কুডি্য়ে গেথেঁছি মালা,
আমরা গরীব কি আর দেব?
ফুল কুডি্ঁয়ে গেথেছি মালা খানি
দেব আপনাকে উপহার
ঈদের সময় দেব বলে করে ছিলাম মনে
কিন্তু ঈদে ছিলেম গাঁয়ে।
এই নিন ঈদের ছোট্ট উপহার,
অভিভূত হলাম আমি পেয়ে বকুল ফুলের মালা উপহার।
ফুল কুডি্য়ে মালা গেথেঁ দিল আমায় বুয়া ,
কি বলে দিব ধন্যবাদ
আজকে আমার মনে হ’ল পেলাম এক নতুন উপহারের স্বাধ।
খুশিতে মন ভরে গেল
মানুষ মানুষে নেই তো ভেদা ভেদ।
আরও কিছু শিক্ষা হল কমলো মনের গোপন অহংকার ও
জেদ।
আর ও ভাল বাসতে হবে গরীব দ:খী জনে,
কস্ট,ব্যাথা না দেই যেন ওদের মনে।
(আমার ঠিকে বুয়া বকুল ফুল কুডি্ঁয়ে আমার জন্য মালা গেথেঁ নিয়ে এসে বলল আমরা গরীব মানুষ আপনাকে কি উপহার দিব ম্যাডাম এই মালা খানি আমি ওআমার স্বামী আপনার জন্য বানিয়েছি,মালা খানি পেয়ে আমি এই কবিতা টি লিখলাম)-১১-০৭-২০১৭.